সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শরীয়তপুরে ফসলী জমিতে পুকুর খনন, ঝাড়ু নিয়ে অবস্থান কৃষকদের

শনিবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০২০ | ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ | 47 বার

শরীয়তপুরে ফসলী জমিতে পুকুর খনন, ঝাড়ু নিয়ে অবস্থান কৃষকদের

শরীয়তপুর সদর উপজেলার পালং ইউনিয়নের উত্তর আটিপাড়ার ফসলি জমিতে গভীর রাতে অবাধে পুকুর খনন করায় উক্ত জমিতে খনন কাজে বাধা প্রদানের জন্য কৃষকরা ঝাড়ু নিয়ে অবস্থান করে এবং খননকারীর বিরুদ্ধে বিচার দাবি করে।

স্থানীয় ও ভূক্তভোগী কৃষকরা জানান, মঙ্গলবার ১৫ ডিসেম্বর গভীর রাতে এক্সক্যাভেটর(ভ্যাকু) দিয়ে নড় কলিকাতা গ্রামের আব্দুল মান্নান শেখ ও লালন শেখ মাটি কেটে ফসলী জমি কেটে পুকুর খনন শুরু করে।

১৬ ডিসেম্বর সকালে দুই-তিন ফসলী জমি নষ্ট করে যাতে এক্সক্যাভেটর(ভ্যাকু) দিয়ে পুকুর খনন না করতে পারে, সেজন্য সকল কৃষক মিলে তা বাধা প্রদান করে এবং পুকুর খননকারী আব্দুল মান্নান শেখ ও লালন শেখের বিচার দাবি করে। আব্দুল মান্নান শেখ মৃত সাকিম আলী শেখের ছেলে এবং লালন শেখ আব্দুল মান্নান শেখের ছেলে। ভূক্তভোগী কৃষক হানিফ শিকদার, শাহজাহান খান, আলী আকবর বেপারী, আব্দুর রব মাদবর ও লাল শরীফ খানসহ ২০-২৫ জন কৃষক জানান, মঙ্গলবার ১৫ ডিসেম্বর গভীর রাতে এক্সক্যাভেটর(ভ্যাকু) দিয়ে নড় কলিকাতা গ্রামের আব্দুল মান্নান শেখ ও লালন শেখ মাটি কেটে ফসলী জমি কেটে পুকুর খনন শুরু করে।

এভাবে ফসলী জমি কেটে পুকুর খনন করলে মাটির উর্বরতা শক্তি হ্রাস পায়। ফলে তিন ফসলি জমি দিন দিন এক ফসলিতে পরিণত হচ্ছে। ওপরের মাটি কাটায় অনেক আবাদি জমিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। এতে সেচ ব্যবস্থায় ব্যাঘাত ঘটছে।’ আমরা আব্দুল মান্নান শেখ ও লালন শেখের উপযুক্ত বিচার চাই। এ বিষয়ে আব্দুল মান্নান শেখের ছেলে লালন শেখকে মোবাইল ফোন করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ প্রসঙ্গে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাই বলেন, আবাদি জমিতে পুকুর খননের ওপর সরকারের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। কেউ আবাদি জমিতে পুকুর খনন করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরও বলেন, যারা ভূক্তভোগী কৃষক তাদের আমার মোবাইল নম্বর দিয়ে দিবেন, ফোন করলেই আমি আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে উপযুক্ত বিচার করবো।

মন্তব্য

comments


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়