আজ শুক্রবার | ১৯ জুলাই, ২০১৯ ইং
| ৪ শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪০ হিজরী | সময় : সকাল ৮:২৪

মেনু

পদ্মা সেতুর  ষষ্ঠ স্প্যানটি ১৫ জানুয়ারির মধ্যে বসানো হবে
মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রকশন ইয়ার্ডের সামনে ষষ্ঠ স্প্যানটি প্রস্তুত

পদ্মা সেতুর ষষ্ঠ স্প্যানটি ১৫ জানুয়ারির মধ্যে বসানো হবে

জাজিরার নাওডোবা প্রতিনিধি:
শুক্রবার, ০৪ জানুয়ারি ২০১৯
৯:২০ অপরাহ্ণ
132 বার

পদ্মা সেতুর ষষ্ঠ স্প্যান আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যে বসানো হবে বলে জানিয়েছেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের পরিচালক শফিকুল ইসলাম ।
তিনি জানিয়েছেন, স্প্যানটি শরীয়তপুরের জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে বসানো হবে। জাজিরা প্রান্তের তীরের দিকের এটিই শেষ স্প্যান। এ ছাড়া মাওয়া প্রান্তে স্প্যান স্থাপনের কাজ চলছে।
পদ্মা সেতু প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডের সামনে ষষ্ঠ স্প্যানটি প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। ষষ্ঠ স্প্যানটি বসানো হবে সেতুর ৩৭ ও ৩৬ নম্বর পিলারের (খুঁটি) ওপর।
এর আগে ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান, ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর তৃতীয় স্প্যান, ১৩ মে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপর চতুর্থ স্প্যান এবং সবশেষ গত ২৯ জুন ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের ওপর পঞ্চম স্প্যান বসানো হয়েছে।
এর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর ৭৫০ মিটার দৃশ্যমান হয়। ছয় মাস পর আরেকটি স্প্যান বসতে যাচ্ছে । ষষ্ঠ স্প্যান বসলে দৃশ্যমান হবে ৯০০ মিটার। পুরো সেতুতে মোট পিলারের সংখ্যা ৪২টি। প্রতিটি পিলারের রাখা হয়েছিল ছয়টি পাইল। একটি থেকে আরেকটি পিলারের দূরত্ব ১৫০ মিটার।
পদ্মা সেতু প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে আরও স্প্যান প্রস্তুত করার কাজ বেশ দ্রুত চলছে। কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে আরও পাঁচটি স্প্যানের ৯০ শতাংশ প্রস্তুতের কাজ শেষ হয়েছে। এ মাসের মধ্যে এসব স্প্যান প্রস্তুত হয়ে যাবে। এই স্প্যানগুলো আগামী কয়েক মাসের মধ্যে বসানো হবে। তবে আপাতত জাজিরা প্রান্ত থেকে স্প্যান বসানোর কাজ চলবে। ৬ ও ৭ নম্বর পিলার নির্মাণকাজ শেষ না হওয়ার মাওয়া প্রান্তে স্প্যান আপাতত বসানো হচ্ছে না। এই দুটি পিলারের কাজ শেষ হলে মাওয়ায় স্প্যান বসানো শুরু হবে। তবে মাঝ নদীতে ১২ ও ১৩ নম্বর পিলার দুটি প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে।

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন
Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInPrint this page

মন্তব্য

comments