আজ মঙ্গলবার | ২১ মে, ২০১৯ ইং
| ৭ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৫ রমযান, ১৪৪০ হিজরী | সময় : দুপুর ১:৪৩

মেনু

যেভাবে সুপার ফোরে কুমিল্লা, ঢাকা, খুলনা ও রংপুর

যেভাবে সুপার ফোরে কুমিল্লা, ঢাকা, খুলনা ও রংপুর

সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭
১২:১৫ অপরাহ্ণ
15827 বার

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এবারের আসরের শেষ চার নিশ্চিত হয়ে গেছে রোববার। লিগ পর্বে এখনো বাকী চারটি ম্যাচ। তবে সেই চার ম্যাচের জয়-পরাজয়ে এক অর্থে খুব বেশি প্রভাব পড়বে না সেরা চারে। দুই ম্যাচ বাকী থাকা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স দুটিতে হারলেও শীর্ষে থেকেই শেষ করবে লিগ পর্ব। তবে নিজ নিজ ম্যাচ জিততে চাইবে ঢাকা ডায়নামাইটস, খুলনা টাইটান্স ও রংপুর রাইডার্স। তাদের জয়-পরাজয়ে পাল্টে যেতে পারে সেরা চারে নিজ নিজ অবস্থান। তাই লিগ পর্বে বাকী থাকা ম্যাচগুলোর দিকে চোখ রাখতেই হচ্ছে। এরপর শুরু হবে সেরা চার নিয়ে কোয়ালিফাইং ও এলিমিনেটর রাউন্ড। তবে সেই লড়াই শুরুর আগে চলুন দেখে নেওয়া যাক কে, কিভাবে জায়গা পেল সুপার ফোরের লড়াইয়ে।
.
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স :
পয়েন্ট টেবিলই বলে দিচ্ছে তাদের দুরন্ত ফর্ম। অন্য সব দলের বাকী একটি করে ম্যাচ। সেখানে দুটি ম্যাচ বাকী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। তবে লিগ পর্বে শীর্ষে থাকাটা তাদের নিশ্চিত। ১০ ম্যাচে ৮ জয় ও ২ হারে ১৬ পয়েন্ট তাদের। মঙ্গলবার খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ম্যাচ তামিম ইকবালের দলে। বুধবার লিগ পর্বের শেষ ম্যাচটি তারা খেলবে সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে। দুটি ম্যাচে তাদের সুযোগ অন্যদের থেকে আরো এগিয়ে যাওয়ার।

২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়নদের এবার শুরুটা অবশ্য হয়েছিল হার দিয়ে। সিলেট সিক্সার্সের বিপক্ষে সিলেটে হেরে যায় তারা। তবে পরের ম্যাচেই চিটাগং ভাইকিংসকে হারিয়ে জয়ে ফিরে দলটি। এরপর রাজশাহীর বিপক্ষে ও চিটাগংয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচেও জয়। নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে রংপুরে রাইডার্সকে ১৪ রানে হারিয়ে টানা চার জয় তুলে নেয় তারা। পরের ম্যাচেই তারা হারিয়ে দেয় আরেক শক্তিশালী দল ঢাকা ডায়নামাইটসকে। তবে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে জয়ের ধারায় ছেদ পড়ে তাদের। কিন্তু খুলনাকে হারিয়ে ফের জয়ে ফেরে তারা। এরপর ঢাকার বিপক্ষে ১২ রানের জয় ও রংপুরের বিপক্ষে লো-স্কোরিং ম্যাচে ৪ উইকেটের জয়। চট্টগ্রাম পর্বেই সুপার ফোর নিশ্চিত হয় রংপুরের।
ঢাকা ডায়নামাইটস :
আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা কাগজে-কলমে বেশ শক্তিশলী দল। দেশি-বিদেশি তারকায় সমৃদ্ধ তারা। কিন্তু নিজেদের ১০টি ম্যাচ শেষ করার পরও সেরা চার নিশ্চিত করতে পারেনি তারা। অথচ কুমিল্লা ও খুলনা সেখানে সেরা চার নিশ্চিত করে রাখে আগেই। সাকিব আল হাসানের ঢাকা শেষ চার নিশ্চিত করে নিজেদের একাদশ ম্যাচে রাজশাহী কিংসকে ৯৯ রানে বড় ব্যবধারে হারিয়ে।

এর আগে কুমিল্লার মতো ঢাকার শুরুটাও হয় সিলেটের বিপক্ষে হার দিয়ে। সিলেট আসলে ঢাকা, কুমিল্লার, রাজশাহীকে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচে পর পর হারিয়ে বাজিমাত করেছিল। পরে অবশ্য হারিয়ে যায় তারা। সিলেটের বিপক্ষে ঢাকার হার ৯ উইকেটের। এরপর খুলনাকে হারিয়ে জয়ে ফিরে ঢাকা। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে সিলেটকে পেয়ে ৮ উইকেটের জয়ে উড়িয়ে দেয় তাদের। এরপর খুলনার বিপক্ষে নিজেদের পরের পর্বের দেখাতেও ৪ উইকেটে জয় ঢাকার। চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে একটি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যায় তাদের। এরপর রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ৬৮ রানের জয়। কুমিল্লার বিপক্ষে হার ৪ উইকেটে ও রংপুরের বিপক্ষে হার ৩ রানে। পারে চিটাগং ভাইকিংসকে ৭ উইকেটে হারিয়ে জয়ে ফেরা ঢাকার। পরের ম্যাচে কুমিল্লার বিপক্ষে হেরে শঙ্কায় পড়ে যাওয়া। রাজশাহীকে হারিয়ে যে শঙ্কা উড়িয়ে সেরা চারে জায়গা করে নেওয়া সাকিব আল হাসানের দলের।

খুলনা টাইটান্স :
১১ ম্যাচ খেলে ৬ জয় ও ৪ ড্রতে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে খুলনা টাইটান্স। একটি ম্যাচ তাদের বৃষ্টিতে ভেসে যায়। তবে তৃতীয় স্থানে থাকা খুলনা যদি মঙ্গলবার জয় পায় কুমিল্লার বিপক্ষে, তাতে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসবে তারা। সেক্ষেত্রে সুযোগ মিলবে প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে খেলার।
খুলনার শুরুটা ছিল ঢাকার বিপক্ষে হেরে। তবে টানা তিন জয় তুলে নেওয়া সিলেটকে থামায় খুলনাই। একই সঙ্গে আসরে নিজেদের প্রথম জয় তুলে নেয়। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে হারায় খুলনা। পরের ম্যাচ আবার হেরে যায় ঢাকার বিপক্ষে। সিলেটের বিপক্ষে ঢাকা পর্বের ম্যাচটি তাদের বৃষ্টিতে ভেসে যায়। পরের ম্যাচে চিটাগংকে তারা হারায় ৫ উইকেটে। এরপর রাজশাহীর বিপক্ষে তাদের জয় ২ উইকেটে। রংপুর রাইডার্সকে ৯ উইকেটে হারিয়ে সুপার ফোরে পথে পা বাড়ায় তারা। এরপর রাজশাহীকে ৬৮ রানে হারানোয় সুপার ফোর নিশ্চিত হয় তাদের। পরের ম্যাচে কুমিল্লার বিপক্ষে তারা হারে ৯ উইকেটে। নিজেদের শেষ ম্যাচে রংপুরের বিপক্ষে তারা হেরেছে ১৯ রানে।

রংপুর রাইডার্স :
ঢাকা ডায়নামাইটসের মতোই দারুণ শক্তিশালী দল হয়েও সেরা চার নিয়ে কিছুটা সংশয়ে পড়ে গিয়েছিল রংপুরে রাইডার্স। নিজেদের একাদশ ম্যাচে খুলনা টাইটান্সকে ১৯ রানে হারিয়ে শেষ দল হিসেবে সেরা চার নিশ্চিত করে দলটি। রাজশাহীর বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয়ে এবারের বিপিএল শুরু করে রংপুর। কিন্তু পরের ম্যাচে হেরে যায় চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে। এরপর কুমিল্লার বিপক্ষেও হার মাশরাফিদের। তবে সিলেটকে হারিয়ে জয়ে ফিরে তারা। পরের ম্যাচে ঢাকাকে হারায় রংপুর। এরপর খুলনার বিপক্ষে হার তাদের। পরে চিটাগং ও সিলেটকে হারিয়ে ফের জয়ের ধারায় ফেরা। তবে কুমিল্লার বিপক্ষে শনিবার ম্যাচে ৪ উইকেটে হেরে শেষ চার কিছুটা ঝুকিতে ফেলে দিয়েছিল রংপুর। রোববার খুলনার বিপক্ষে জয়ে অবশ্য সেই শঙ্কা দূর হয়।
শেষের রোমাঞ্চ :
লিগ পর্ব শেষের দিকে। মঙ্গলবার ও বুধবার হবে লিগ পর্বের শেষ চারটি ম্যাচ। যেখানে ঢাকা, খুলনা ও রংপুরের অবস্থান বদল হতে পারে বলে ম্যাচগুলোর দিকে আলাদা নজর রাখতেই হচ্ছে। এরপর কোয়ালিফাইং ও এলিমিনেটর তো বরাবরই রোমাঞ্চের ঢালি সাঁজানো পর্ব। যা দেখতে মুখিয়ে সবাই।

সংবাদটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন
Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedInPrint this page

মন্তব্য

comments